আপনি কি খুব দ্রুত অনেক টাকার মালিক হতে চান? বৈধ পথে হঠাৎ করে হয়ে যাওয়া কিছু সম্পদশালীর গল্প।


ক্রিপ্টোকারেন্সি এর মাধ্যমে অনেকেই রূপকথার গল্পের মত হয়েছেন কোটিপতি।

ক্রিপ্টোকারেন্সি কি?
ক্রিপ্টোকারেন্সি হলো একটি ডিজিটাল মুদ্রা যা দিয়ে অনলাইনে কোন কিছু কিনা বা বিক্রি করা যায় এবং প্রায় দৈনন্দিন সকল কাজে ব্যবহার করা যায়। ক্রিপ্টোকারেন্সি কোন দেশের প্রচলিত কোন বিহিত মুদ্রা নয়। এটি অআর্থিক প্রতিষঠান দ্বারা পরিচালিত একটি ডিজিটাল মুদ্রা। ক্রিপ্টোকারেন্সি সাধারণ মুদ্রা এর মতো নয়‌ কারন ক্রিপ্টোকারেন্সি মুদ্রা শুধুমাত্র অনলাইনে ব্যবহার করা যায়।

ক্রিপ্টোকারেন্সি এর অগ্রযাত্রা কিভাবে শুরু হয়েছিল ? 
ক্রিপ্টোকারেন্সি শুরু হয়েছিল আজ থেকে ১১ বছর পূর্বে ২০০৯ সালের দিকে তখন বিটকয়েন নামে একটি কয়েন সাতোশি নাকামোতো নামক এক ব্যাক্তি অনলাইনে আনেন, সেই থেকে ক্রিপ্টোকারেন্সি অগ্রযাত্রা শুরু হয় ।২০১৩ এর দিকে বিটকয়েন এর দাম ছিল মাত্র কয়েক টাকা। কিন্তু ২০১৭ এর প্রথমদিকে বিটকয়েন এর দাম আকাশচুম্বী হয়ে পড়ে তখন একটি বিটকয়েন এর দাম ১৪ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ওঠে ছিল ।তখন কেউ জানত না যে বিটকয়েন এর দাম এত হতে পারে তখন যাদের কাছে বিটকয়েন ছিল তারা কোটিপতি হয়ে যায়। ২০১৩ এর দিকে আড়াই লক্ষ বিটকয়েন দিয়ে একজন একটি পিৎজা অর্ডার দিয়েছিল সেদিনের কথা মনে করে এখনো ওই দিনটিকে বিটকয়েন পিৎজা ডে হিসেবে পালন করা হয় ।তখন আড়াই লক্ষ বিটকয়েন এর দাম যদি ৫০০ টাকাই হয়, তাহলে তখন আড়াই লক্ষ বিটকয়েন যদি কেউ সংগ্রহ করে রাখে তাহলে ২০১৭ এর দিকে বিটকয়েন এর দাম যেমন ছিল সে তেমন সেটা বিক্রি করতে পারলে তার কয়েকশো কোটি টাকা লাভ হতো ।এমনকি লাভ হয়েছিল ,অনেক কোম্পানি বিটকয়েন কে কিনে রেখে দিয়েছিল এবং তারা আজ বিলিওনিয়ার হয়ে গেছে

বাংলাদেশী অনেকেও বিটকয়েন সংগ্রহ করে রেখেছিল তারা এখন কোটিপতি ।বিটকয়েন এর মত অনেক কয়েন রয়েছে যা সংগ্রহ করে বিটকয়েনের মতোই লাভবান হওয়া গিয়েছে তাদের মধ্যে অন্যতম একটি হলো ইথেরিয়াম। ২০১৭ এর দিকে ইথেরিয়াম এর দাম প্রায় লক্ষ টাকা হয়েছিল ।তখন ইথেরিয়াম বিক্রি করেও সবাই কোটি কোটি টাকা ইনকাম করেছে। বিটকয়েন ,ইথিরিয়াম এর মত অনেক কয়েন রয়েছে যার মাধ্যমে অনেকেই কোটিপতি হয়ে গিয়েছে ।বিটকয়েন এর মত নতুন নতুন অনেক কোয়েন অনলাইনে আসছে যেগুলো কিনে বর্তমানেও অনেক ব্যক্তি লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতিনিয়ত আয় করছে ।বিটকয়েন এর দাম ২০১৭ সালের পর থেকে কখনো লক্ষ টাকা এর নিচে যায়নি বিটকয়েন এর বর্তমান দাম প্রায় লক্ষ টাকা যা ২০২১ সালের মধ্যে ১৪ লক্ষ টাকা এর উপরে চলে যাবে যা বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন আপনিও যদি এখন কয়েকটি বিটকয়েন কিনে রেখে দিতে পারেন আপনিও হয়তো দু-এক বছর পর কোটিপতি হয়ে যেতে পারবেন। আপনার সুযোগ আছে কোটিপতি হওয়ার ।তাই সবাই ক্রিপ্টোকারেন্সি সম্পর্কে ভালোভাবে জ্ঞান গ্রহণ করে একটি ভালো জীবন যাপন এর দিকে এগিয়ে যেতে পারেন।

ক্রিপ্টোকারেন্সি এর কোনো নেতিবাচক প্রভাব রয়েছে কি?
ক্রিপ্টোকারেন্সি এর কয়েন বা বিটকয়েন দিয়ে টাকা আদান প্রদান করলে সেটার খরচ খুবই কম হয়। তাই বড় বড় কোম্পানি তাদের ব্যবসায়িক খরচ গুলোতে ক্রিপ্টোকারেন্সি কয়েন ব্যবহার করছে যার ফলে সরকার সেই লেনদেনের কোন ট্যাক্স বা কর পায় না ।আবার অন্যদিকে দুর্নীতিবাজরা ক্রিপ্টোকারেন্সি কয়েন এর মাধ্যমে তাদের টাকা বিভিন্ন কয়েন হিসেবে রাখছে যা ব্ল্যাক মানি হিসেবে বিবেচিত ।কারণ সেই কয়েন দ্বারা সরকার কোন পরিমাণ অর্থ পাচ্ছে না ।তাই অনেক দেশে ক্রিপ্টোকারেন্সি গ্রহণযোগ্য নয় ।আবার বিভিন্ন সন্ত্রাসবাদীরা ক্রিপ্টোকারেন্সি এর মাধ্যমে টাকা আদান প্রদান করে তাদের প্রয়োজনীয় অস্ত্র-সরঞ্জাম বা খাদ্য সামগ্রী কিনছে যার ফলে তাদের খোঁজ নিতে পারছে না সরকার ।এটি হলো ক্রিপ্টোকারেন্সি এর সবথেকে বড় সমস্যা।

আপনি কি বিটকয়েন বা ইথেরিয়াম বা অন্য কোন ক্রিপ্টোকারেন্সি আয় করতে পারবেন?

হ্যাঁ ,অবশ্যই আপনি বিটকয়েন বা ইথেরিয়াম বা অন্য যেকোন কয়েন আয় করতে পারবেন। আপনি বিটকয়েন বা ইথেরিয়াম বা অন্য ক্রিপ্টোকারেন্সি মাইনিং করে আয় করতে পারবেন বা আপনার কাছে রাখতে পারবেন। আমেরিকার অনেক লোকই বিটকয়েন মাইনিং করে মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করছে। বাংলাদেশীয় অনেকেই রয়েছে আপনিও চাইলে বিটকয়েন মাইনিং করে অনেক অর্থের মালিক হয়ে যেতে পারবেন।

কোনো মন্তব্য থাকলে নিম্নে কমেন্ট করে জানাতে পারেন। অনলাইন পত্রিকার পাশেই থাকার জন্য ধন্যবাদ।



প্রতিবেদন
মোঃ রাকিবুল হাসান

কোন মন্তব্য নেই

Write your comment here........

Blogger দ্বারা পরিচালিত.