দেশে আবারও ধর্ষণ ! বিস্তারিত জানতে ছবিতে ক্লিক করুন।


ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এর দিকে মাত্র ৯ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণ করা হয়।
যেখানে সারাবিশ্ব করোনার ভয়ে ভীত, মৃত্যুর দিন গুনছে ঘরে বসে, যেখানে সারা দেশে মুসলমানদের শবে বরাতের নামাজ পড়ার আয়োজন, সেই সময়টায় এক নরপশু ঝাঁপিয়ে পড়ে অবুঝ এক শিশুর ওপরে! গতকাল সন্ধ্যায় কিছু বুঝার আগেই ৯ বছরের এক শিশু ধর্ষণ হয়।

ধর্ষণ হওয়া শিশুটির পরিবার আশুগঞ্জ উপজেলার সোনারামপুর এলাকার একটি চাতালকলে কাজ করে। তারা কিশোরগঞ্জ জেলার বাজিতপুর উপজেলার নীলক্ষ্মী আফানিয়া গ্রামের বাসিন্দা। অন্যদিকে এ ঘটনায় অভিযুক্ত লিটন মিয়া ২৮ বছর বয়সী। এই লিটন মিয়া কিশোরগঞ্জের অষ্টগ্রাম উপজেলার বাসিন্দা।

শিশুটির মা জানায়, অন্যদিনের মতোই বিকেলে চাতালকলের পাশেই শিশুটি খেলা করছিল। তখন লিটনমিয়া দেখতে পেয়ে সে সেই শিশু টিকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে চাতালকলের পাশে এক নির্জন জায়গায় নিয়ে যায়। তার পর ওই নরপশু ধর্ষণ করে করে ৯ বছরের অবুঝ নিস্পাপ শিশুটিকে। এরপর সন্ধ্যায় শিশুটি রক্তাক্ত অবস্থায় বাড়ি ফিরে আসে। তার মা তার এই অবস্থার কারণ জিজ্ঞেস করলে অনেক আতঙ্কিত হয়ে মেয়েটি তার মা-কে সব খুলে বলে। তৎক্ষনাৎ রাতে তার পরিবার তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় আশুগঞ্জ থানায় নিয়ে যায়।
আশুগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ জানান, রাতে হঠাৎ ধর্ষণের শিকার ওই ৯ বছরের ছোট্ট শিশুকে কোলে করে নিয়ে তার বাবা মা থানায় আসে। তাৎক্ষণিকভাবে তাকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়।
তিনি আরো জানান, শিশুটির বাবা আশুগঞ্জ উপজেলার সোনারামপুর গ্রামের জোহরা অটোরাইস মিলে দীর্ঘদিন যাবত চাতাল শ্রমিক হিসেবে কাজ করতো। জানা গেছে যে, ধর্ষণ হওয়া শিশুটির বাবার সাথে ধর্ষক লিটনের পূর্বপরিচয় ছিলো অনেক আগে থেকেই। লিটন প্রায়ই অবসর সময়ে অটোরিকশা চালাতেন এবং সেই অটোরিকশা এর মাধ্যমেই তার জীবিকা চলতো। কিছুদিন আগে অটোরিকশা চালাতে গিয়ে ট্রাফিক আইন অমান্য করায় তার অটোরিকশাটি থানায় নিয়ে আসে পুলিশ। এরমধ্যেই আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সোনারামপুরের জোহরা অটোরাইস মিলের পাশের এক নির্জন স্থানে ঐ শিশুকে ধর্ষণ করে এই লিটন। যখন শিশুটির বাবা-মা থানায় আসে তখন ধর্ষক লিটন থানায় আটক অটোরিকশাটি ফিরিয়ে নিতে আসেন। ধর্ষিত শিশুটি লিটনকে দেখতে পেয়ে চিনে ফেলে এবং পুলিশকে সাথে সাথে জানায়। তখন লিটনকে পুলিশ গ্রেফতার করে ফেলে।

ধর্ষণ হওয়া শিশুটির পরিবার ধর্ষক লিটনের সঠিক বিচারের দাবি জানান। সারাবিশ্ব যখন করোনায় মৃত্যুর দিন গুনে চলছে, কিছু ধর্ষক এখনো তাদের কাম চেতনা দাবিয়ে রাখতে পারে নি।

লেখাঃ নূরে আজম খান



কোন মন্তব্য নেই

Write your comment here........

Blogger দ্বারা পরিচালিত.