উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন এখনও বেঁচে আছেন

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন এখনও বেঁচে আছেন। কিম জং উন বেঁচে আছেন এবং ভাল আছেন সেটা কিম জং উন নিজেই জানিয়েছেন। কিম জং উনকে নিয়ে অনেক গুজব ছড়িয়ে ছিল। কিম জং উন নিজেই সেই সব গুজব ছড়ানো বন্ধ করেছে।

১৩ ই এপ্রিল থেকে কিম জং উনকে দেখা না যাওয়ার করনে অনেক আলোচনা হয়েছে বিশ্বে।
আলোচনা সব থেকে বেশি শুরু হয় যখন কিম উত্তর কোরিয়ার প্রতিষ্ঠাতা এর জন্ম দিনে আসেননি। তখন হং কং এর টিভি চ্যানেল প্রচার করেন কিম জং উন মারা গিয়েছে তখন থেকেই এই গুজবটি ছড়িয়ে পড়েছে।

15 এপ্রিল থেকে স্বাস্থ্যের বিষয়ে গুজব প্রচার করা শুরু হয়েছিল। এই দিনটি উত্তর কোরিয়ার জাতির পিতা এবং কিমের দাদার জন্মদিন ছিল। কিমের সেই অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত থাকার কোনো প্রশ্নই ছিল না। কিন্তু সবাইকে চমকে দিয়ে কিম সেদিন সেই অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত ছিলেন। এটি অনেক বড়ো একটি বিষয় উত্তর কোরিয়ার মানুষের জন্য। কিম জং উন অন্য যেকোনো অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত থাকলেও তিনি কখনোই এই  অনুপস্থিত ছিলেন না। তাই প্রত্যেকে ভাবেন যে কিম জং উন আর বেঁচে নেই। এরই কারণে কিছু অসৎ ব্যাক্তি গুজব ছড়ান তিনি আর বেঁচে নেই। মুহুর্তের মধ্যে পুরো পৃথিবীতে এই খবর ছড়িয়ে পড়ে।

কিছু দিন আগে কিমের অস্ত্রোপচারের পরে কিম গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। তার পর থেকে কিম অসুস্থ্য ছিল এবং ১১ e এপ্রিল শেষ সংসদে আসেন কিম। এরই পরপ্রেক্ষিতে গুজবটি আরো জোরালো হয়ে উঠে।

উত্তর কোরিয়ার সমস্ত মিডিয়াগুলি প্রায়ই সরকার-নিয়ন্ত্রিত। তাই কোনও তথ্য পাওয়া খুবই কঠিন। তাই সঠিক খবর না পাওয়া যাওয়াই সকলেই বেশ চিন্তায় ছিলেন।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন কিম জং উনকে নিয়ে বলেন তিনি তার ভালো বন্ধু। কিম জং উনের স্বাস্থ্য নিয়ে খোলাসা করে কিছু না বললেও তিনি জানিয়েছেন কিম সুস্থ আছে।

উত্তর কোরিয়ার এক শহরে শেষ ১৩ তারিখ দেখা যায় কিম জং উনকে। তার প্রাইভেট ট্রেনে তাকে স্যাটেলাইট এর মাধ্যমে দেখা যায়। সেখানে দেখা যায় তিনি সুস্থ আছেন। কিমকে নিয়ে সেদেশের গণমাধ্যম এখন পর্যন্ত কিছু জানাইনি। কিন্তু উত্তর কোরিয়াতে তেমন কোনো পরিবর্তন পাওয়া যায়নি তাই বলা যায় কিম জং উন সুস্থ্য ও জীবিত আছেন।






কোন মন্তব্য নেই

Write your comment here........

Blogger দ্বারা পরিচালিত.