তবে কি আইপিএলের কারণে দুবছর পিছিয়ে যাবে অস্ট্রেলিয়াতে অনুষ্ঠিত হওয়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ?


বছরের শেষের দিকে অর্থাৎ অক্টোবরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে পৃথিবীর প্রায় সকল জিনিসই এখন বন্ধ রয়েছে। তাই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত না হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। কিন্তু টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরু হতে আরো মাস সময় রয়েছে এই ছয় মাসে করোনাভাইরাসের পরিস্থিতি ঠিক করতে পারলে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু গত ২৯ শে মার্চ থেকে শুরু হওয়ার কথা ছিল আইপিএল কিন্তু করোনাভাইরাসের জন্য আইপিএল শুরু হতে পারেনি। কিন্তু আইপিএল যদি না হয় তাহলে ভারতের ক্রিকেট বোর্ডকে অনেক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হবে, তাদের বিরাট অংকের আর্থিক ক্ষতি হবে যদি এবছর আইপিএল না হয়ে থাকে। তাই তারা মরিয়া হয়ে উঠেছে বছর আইপিএল অনুষ্ঠিত করার জন্য। তাই ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআই চাচ্ছে যে আইপিএল টা অক্টোবর-নভেম্বর দিকে আয়োজন করতে। কিন্তু সে সময় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার কথা তাই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ তখন শুরু হতে পারবে না।

যদি করোনাভাইরাস এর পরিস্থিতি মোকাবেলা করা যায় তাহলে অক্টোবর নভেম্বরের দিকে আইপিএল অনুষ্ঠিত হবে। আইপিএলের কারণে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ এক বছর পিছানো যেতে পারে কিন্তু দু'বছর কেন? অলিম্পিক থেকে শুরু করে ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ, কোপা আমেরিকা সবই এক বছর করে পিছনে হয়েছে। তাহলে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ কেন এক বছর না পিছিয়ে দুবছর পিছানো হবে। কারণ হলো 2021 এর প্রথম দিকে অস্ট্রেলিয়াতে টি-টোয়েন্টি লিগ বিগ ব্যাশ আয়োজিত হবে। তাই জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি দিকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অস্ট্রেলিয়া তে অনুষ্ঠিত হতে পারবে না। তারপর মার্চ এর দিকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হতে পারে কিন্তু তখন আবার আইপিএল তাই তখন বিশ্বকাপ হতে পারবে না। তারপর ২০২১ সালে ভারতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। এবং ভারত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ২০২১ তাদের দেশেই অনুষ্ঠিত করবে। তাই অস্ট্রেলিয়ার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের হবেনা সে বছর।কারন পর পর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বা টি টি-টোয়েন্টি লীগ কোনো টেলিভিশন সম্প্রচার করতে চাইবে না। যদি ২০২১ আর মার্চ আর দিকে আইপিএল না হয়ে ভারত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয় তাহলে ২০২১ এর অক্টোবর এর দিকে অস্ট্রেলিয়ার টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হতে পারবে।

কিন্তু ভারত আইপিএল মার্চ এই অনুষ্ঠিত করবে তার সাথে ভারত টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত করবে।তাই আগামি বছরও অস্ট্রেলিয়াতে টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হতে পারবে না। তাই বছর পর অস্ট্রেলিয়াতে টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত করতে হবে।তাই বলা যায় আইপিএল এর কারণেই ২০২০ এবং ২০২১ অস্ট্রেলিয়ার টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আনুষ্ঠিত করা যাবে না। আইপিএলের কারণেই অস্ট্রেলিয়ার টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বছর পিছানো হবে ।তাই বলা যেতে পারে যে আইপিএলের কারণে বছর এবং সামনের বছর মানে ২০২১ অস্ট্রেলিয়ার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হতে পারবেনা। শুধুমাত্র আইপিএলের কারণেই অস্ট্রেলিয়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দু বছর পিছানো হবে এবং যেটা প্রায়নিশ্চিত করে বলা গিয়েছে ইন্ডিয়ান গণমাধ্যম টাইমস অফ ইন্ডিয়া এবং ক্রিকবাজ নিউজ এবং অন্যান্য মিডিয়া এর খবর থেকে।তাই বলা যেতে পারে যে আইপিএলের কারণেই মূলত দু বছর পিছিয়ে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। এবং খুব সম্ভবত 2022 এর শেষের দিকে অনুষ্ঠিত হতে পারে অস্ট্রেলিয়া টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ।






প্রতিবেদন

রাকিবুর হাসান

কোন মন্তব্য নেই

Write your comment here........

Blogger দ্বারা পরিচালিত.